jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» সিলেট সন্ত্রাসবিরোধী মানববন্ধনে বক্তারা সন্ত্রাস ও উগ্রবাদী গোষ্ঠী দেশ জাতি ও সমাজের শত্রু «» আইনজীবী তালিকাভুক্তির লিখিত পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা «» গোলাপগঞ্জে আওয়ামীলীগের মতবিনিময় সভা «» জগন্নাথপুরে আ.লীগ নেতার হামলার শিকার বিধবা মহিলা, বসত ঘরে ভাংচুর ও হত্যার হুমকী «» ছাতকে খেলাফত মজলিসের জরুরি দায়িত্বশীল বৈঠক অনুষ্ঠিত «» সিলেটে অনৈতিক কর্মকান্ড থেকে স্ত্রীকে ফেরাতে না পেরে হত্যা «» দক্ষিণ সুরমায় একটি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা «» সিলেটে গৃহবধূ হত্যায় গ্রেফতার ১ «» মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরীর বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্ম «» জগন্নাথপুরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উদযাপন



জড়িতদের চিহ্নিত করে সুষ্টু বিচারের দাবী রায়হানের মায়ের

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বৃহত্তর আখালিয়া (১২ হামছায়া) সংগ্রাম পরিষদ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত রায়হান আহমদের মা সামলা বেগম দাবী করেছেন নিহত রায়হান ঘটনার আগের রাতে নীল শার্ট পরেই বেরিয়েছিলেন। কিন্তু রায়হানের মরদেহে ছিল লাল শার্ট। এছাড়া মৃতদেহ হস্তান্তরের সময় তার মোবাইলও ফিরিয়ে দেয়নি পুলিশ। আজ শনিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে রায়হানের মা সামলা বেগম একই সাথে মামলার সকল আলামত সংগ্রহ করতে পিবিআইর প্রতি আহবান জানিয়েছেন তিনি।

 

পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনের নিহত রায়হানের মা সালমা বেগম আরো বলেন, আমার নিরাপরাধ ছেলেকে কারা ধরে ফাঁড়িতে নিয়ে আসে এবং তাকে কী জন্য কারা নির্যাতন করেছে সে বিষয়টি এখনও পরিস্কার হয়নি। এই মামলায় আশেক এলাহিসহ অন্য পুলিশ সদস্যরা কেনইবা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিচ্ছেন না এটা আমার কাছে রহস্যজনক মনে হচ্ছে। তবুও আমি আশাবাদি তদন্ত সংস্থা পিবিআই রায়হান হত্যার নেপথ্যকারীদের শনাক্ত করবে।

 

এছাড়া রায়হানের মা আকবরকে ধরতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় সিলেট জেলা পুলিশ এবং কানাইঘাট সীমান্ত এলাকার বাসিন্দা ও খাসিয়া সম্প্রদায়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি জড়িত সকলকে গ্রেফতারের পাশাপাশি ন্যায় বিচার দাবি করেন।

 

গত ১১ অক্টোবর বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে গুরুতর আহত হন রায়হান। তাকে ওইদিন সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন বন্দরবাজার ফাঁড়ির এএসআই আশেকে এলাহীসহ পুলিশ সদসরা। সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে হাসপাতালে মারা যান রায়হান।

 

ঘটনার পর পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল, নগরের কাস্টঘরে গণপিটুনিতে রায়হান নিহত হন। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয় ফাঁড়িতে পুলিশি নির্যাতনে প্রাণ হারান রায়হান।

 

এ ঘটনায় রায়হানের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে সিলেট মহানগর পুলিশের তদন্ত কমিটি ঘটনার সত্যতা পেয়ে বন্দরবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবরসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করেন।

 

মামলাটি পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশে পিবিআইয়ের তদন্ত কার্যক্রম চলমান রয়েছে। পরে মরদেহ কবর থেকে তুলে পুনঃময়নাতদন্ত করা হয়। রায়হানের দেহে ১১১টি আঘাতের চিহ্ন মেলে ফরেনসিক রিপোর্টে।
এসময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বৃহত্তর আখালিয়া সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কামরান। এসময় তিনি দ্রুততম সময়ের মধ্যে অভিযোগপত্র দাখিল এবং সুষ্ঠ ও দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।