jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» আইনজীবী তালিকাভুক্তির লিখিত পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা «» গোলাপগঞ্জে আওয়ামীলীগের মতবিনিময় সভা «» জগন্নাথপুরে আ.লীগ নেতার হামলার শিকার বিধবা মহিলা, বসত ঘরে ভাংচুর ও হত্যার হুমকী «» ছাতকে খেলাফত মজলিসের জরুরি দায়িত্বশীল বৈঠক অনুষ্ঠিত «» সিলেটে অনৈতিক কর্মকান্ড থেকে স্ত্রীকে ফেরাতে না পেরে হত্যা «» দক্ষিণ সুরমায় একটি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা «» সিলেটে গৃহবধূ হত্যায় গ্রেফতার ১ «» মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরীর বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্ম «» জগন্নাথপুরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উদযাপন «» গোলাপগঞ্জে শাক চাষ নিয়ে বাকবিতন্ডা : স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন



তুরস্কে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ৪, আহত দেড়শতাধিক

ডেস্ক রিপোর্ট :: তুরস্কের এজিয়ান উপকূলে ৭ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে অন্তত চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১৫০ জনের বেশি। ‍তুর্কি গণমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি এ তথ্য জানিয়েছে। শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) তুরস্কের এজিয়ান উপকূল এবং গ্রিসের সামোন উপকূলের উত্তরাংশে শক্তিশালী এ ভূমিকম্প আঘাত হানে।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানিয়েছে, ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল তুরস্কের ইজমির প্রদেশে। পার্শ্ববর্তী অ্যাথেন্স এবং ইস্তাম্বুলেও কম্পন অনুভূত হয়েছে।

ভূমিকম্পের মাত্রা ৬ দশমিক ৬ ছিল বলে জানিয়েছে আঙ্কারা। ইজমির শহরের অন্তত ২০টি বহুতল ভবন ধসে পড়েছে। সমন্বিত পদক্ষেপের মাধ্যমে পরিস্থিতি মোকাবিলায় সংশ্লিষ্ট সরকারি সব প্রতিষ্ঠান কাজ করেছ বলে জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান। বলেন, ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত আমাদের নাগরিকদের সঙ্গে আমরা আছি। সম্ভাব্য সবকিছু করার জন্য সমবেতভাবে সবাই অংশ নিয়েছে।

ভূমকম্পের কারণে সামোস বন্দরে মিনি সুনামি দেখা দিয়েছে বলে জানা গেছে।

তুরস্ক এবং গ্রিস উভয়ই ফল্টলাইনে অবস্থিত। ভূমিকম্প এ অঞ্চলে স্বাভাবিক ঘটনার মতো।

শুক্রবারের ভূমিকম্প গ্রিসের কেটে উপকূলেও অনুভূত হয়। সামাজিক মাধ্যমে প্রচার হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, ধ্বংসস্তূপের নিচ থেকে আটকা পড়াদের উদ্ধার করছেন সাধারণ মানুষ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভূকম্পন শুরু হওয়ার পরপরই সাধারণ মানুষ রাস্তায় এসে আশ্রয় নিতে থাকেন।

ফেব্রুয়ারিতে তুরস্কের পূর্বাঞ্চলীয় এলাজিগ প্রদেশে ভূমিকম্পে অন্তত ৩০ জন নিহত হয়। আহত হয় ১৬০ জন।

২০১৯ সালের জুলাইতে গ্রিসের অ্যাথেন্সে ভূমিকম্প আঘাত হানে। এতে শহরের অধিকাংশ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

১৯৯৯ সালে ইস্তাম্বুলের পার্শ্ববর্তী ইজমির শহরে শক্তিশালী ভূমিকম্পন আঘাত হেনেছিল। এতে ১৭ হাজার মানুষ নিহত হয়।