jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» ছাতকে চাঁদাবাজ ইদন মিয়া গ্রেফতার «» ছাতকের আলীগঞ্জ বাজারে দক্ষিণ ছাতক উপজেলা বাস্তবায়নের দাবিতে আবেদন «» খেলাফত মজলিস মৌলভীবাজারে বড়লেখা উপজেলায় উলামা ও সূধী সমাবেশ সম্পন্ন «» গোয়াইনঘাটে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে হামলা, গ্রেফতার ১ «» খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগরীর নির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত «» আগামী শুক্রবার সিলেটে সমমনা ইসলামী দলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ «» ছাতকে বাড়ি ফেরার পথে গৃহবধূ ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার «» সিলেটে শেখ রাসেলের ৫৭তম জন্মদিন পালন «» ওসমানীনগর ইউপি নির্বাচনে বিএনপিসহ একাধিক প্রার্থীর আচরণবিধি লঙ্গন «» জগন্নাথপুরে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার উপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের



জকিগঞ্জে ঘরে ঘরে সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট! বেড়েছে করোনা আতঙ্ক

জেএসবি টুয়েন্টিফোর :: সিলেট জকিগঞ্জে করোনা মহামারীর শুরুর দিকে সামান্য জ্বর কিংবা সর্দি-কাশি হলেই উৎকণ্ঠিত হয়ে পড়েছিল মানুষ। চিকিৎসার জন্য জকিগঞ্জ সরকারি হাসপাতালে ছুটছিলেন অনেকেই। তখন পরীক্ষা করে অনেকের শরীরেই করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব না মেলায় মানুষের মধ্যে আতঙ্ক একটু কমেছিল। যদিও তখনো ব্যাপক হারে করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটায় সাবধানতা ছিল সবার মধ্যে। ফলে মাঝের সময়টাতে সাধারণ ফ্লু বা জ্বর সর্দি-কাশির প্রকোপ যেন একটু কমে আসে। এতে স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে মানুষের মধ্যেও তৈরি হয়েছে গাছাড়া মনোভাব। কিন্তু এখন ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে আবারও ঘরে ঘরে বেড়েছে সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টের রোগী।

 

জকিগঞ্জে শিশু, নারী থেকে শুরু করে সব বয়সী মানুষই এখন সর্দিজ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন। ফলে এ নিয়ে আবারও মানুষের মধ্যে করোনা আতঙ্ক বেড়েছে।
জানা গেছে, এখন প্রতিদিনই জকিগঞ্জ সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আউটডোরে প্রায় ৮০% রোগী আসছে সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে। হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেয়া রোগীদের ৫০% সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত। সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত রোগীর সঙ্গে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণও একটু বেশি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

 

চিকিৎসকরা বলছেন, জকিগঞ্জে করোনা ভাইরাস শনাক্তের আগেও সর্দি, জ্বর ও কাশি নিয়ে মানুষকে এত বেশি আতঙ্কিত হতে দেখা যায়নি। সাধারণভাবেই শীতের সময় মানুষ সর্দি, জ্বর, কাশি, গলাব্যথা, টনসিল, বাতব্যথা, ব্রঙ্কাইটিস, সিওপিডি, অ্যাজমা, শ্বাসকষ্ট, নিউমোনিয়াসহ শ্বাসতন্ত্রের রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। আবার ঋতু পরিবর্তনের সময়ও এ ধরনের রোগব্যাধীর প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। তবে গ্রীষ্মকালে এ ধরনের রোগী বেশি হয় না। কিন্তু এখন অনেক মানুষ সর্দিজ্বরসহ শ্বাসতন্ত্রের রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

চিকিৎসকদের ধারণা ‘ভ্যাপসা গরম, রোদ বৃষ্টির কারণে কিছুদিন ধরে সর্দি, জ্বর, হাঁচি, কাশি ও শ্বাসতন্ত্রের রোগী বেড়েছে। বর্তমানে হাসপাতাল ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের প্রাইভেট চেম্বারগুলোতে এই ধরনের রোগী বেশি আসছে। এ ধরনের রোগের সঙ্গে কোভিড-১৯ সংক্রমণও একটু বেশি দেখা হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। সম্প্রতি করোনা নিয়ে মানুষের মধ্যে গাছাড়া মনোভাবের কারণে কোভিড-১৯ সংক্রমণ বাড়তে পারে। তাই এ সময় মানুষকে খুব সাবধানে চলাফেরা করতে হবে।’

তবে কোনটা করোনা আর কোনটা সাধারণ সর্দি, জ্বর, কাশি তা কীভাবে বোঝা যাবে এ নিয়ে চিকিৎসকরা আগেই আলোচনা করেছেন। তারা বলছেন, করোনা হলে জ্বর, শুকনো কাশি, গলাব্যথা, চোখে ব্যথা, মাংশপেশিতে ব্যথা, স্বাদ-গন্ধ না পাওয়া, শ্বাসকষ্টসহ বেশ কয়েকটি উপসর্গ দেখা দিতে পারে। শিশুদের ক্ষেত্রে গায়ে দেখা দিতে পারে র‌্যাশ। ফলে এসব লক্ষণ কারও মধ্যে দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে করোনা পরীক্ষা করতে হবে। সেই সঙ্গে মেনে চলতে হবে আইসোলেশন পন্থা ও বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, মাস্ক পরার মতো স্বাস্থ্যবিধি। আবার কেউ যদি সাধারণ ফ্লুতেও আক্রান্ত হন, তা হলেও তিনি এসব পন্থা মেনে চলতে পারেন।

 

এ প্রসঙ্গে জকিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল্লাহ আল মেহেদী বলেন, জকিগঞ্জে অতিতের তুলনায় জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের ৫০% এসব রোগে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া প্রতিদিন হাসপাতালের আউটডোরে ৮০% রোগী এসব রোগ নিয়ে চিকিৎসা নিতে আসছেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের চেম্বারের শতভাগ রোগী এখন জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে আসছেন। তবে রোগীদের প্রায় সবাই করোনা পরীক্ষা করতে অনিচ্ছুক হওয়ায় করোনা আক্রান্তের বিষয়টি পরিস্কার জানা যাচ্ছেনা। অবশ্য আমরা মারাত্মক রোগীদের করোনা পরীক্ষার চেষ্ঠা করে থাকি। তিনি রোগীরদের তুলনায় হাসপাতালে চিকিৎসক স্বল্পতার কথা তুলে ধরে বলেন, পর্যাপ্ত চিকিৎসক না থাকায় রোগীদের চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে। তাই হাসপাতালের শূণ্যপদগুলো দ্রুত পূরণ না হলে ঠিক মতো চিকিৎসা সেবা দেয়া অসম্ভব হয়ে পড়বে।