jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» ছাতকে চাঁদাবাজ ইদন মিয়া গ্রেফতার «» ছাতকের আলীগঞ্জ বাজারে দক্ষিণ ছাতক উপজেলা বাস্তবায়নের দাবিতে আবেদন «» খেলাফত মজলিস মৌলভীবাজারে বড়লেখা উপজেলায় উলামা ও সূধী সমাবেশ সম্পন্ন «» গোয়াইনঘাটে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে হামলা, গ্রেফতার ১ «» খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগরীর নির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত «» আগামী শুক্রবার সিলেটে সমমনা ইসলামী দলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ «» ছাতকে বাড়ি ফেরার পথে গৃহবধূ ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার «» সিলেটে শেখ রাসেলের ৫৭তম জন্মদিন পালন «» ওসমানীনগর ইউপি নির্বাচনে বিএনপিসহ একাধিক প্রার্থীর আচরণবিধি লঙ্গন «» জগন্নাথপুরে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার উপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের



মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থার স্বকীয়তা ধ্বংসের অপচেষ্টা বন্ধ করতে হবে- মনসুরুল আলম মনসুর

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি মনসুরুল আলম মনসুর বলেছেন, মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। সরকার ও সরকারের ভেতরে ঘাপটি মেরে বসে থাকা কিছু মুনাফেক অত্যন্ত সুকৌশলে মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। কওমি সনদের সরকারি স্বীকৃতি ও হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনের অংশবিশেষকে পুঁজি করে সরকারের মদদপুষ্ট কিছু ব্যক্তিকে এ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। কওমি অঙ্গনে সরকারের দালাল হিসেবে পরিচিত গুটিকয়েক মানুষের স্বার্থের কাছে আজ পুরো মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থা জিম্মি হয়ে আছে।

 

সম্প্রতি হাটহাজারী মাদরাসায় কওমি মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থাকে দালালমুক্ত করার আন্দোলনে অংশ নিয়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তারা তাদের দাবি আদায়ের জন্য মাঠে নেমে এসেছেন। তবে আন্দোলনকারীদের কেউ কেউ মাদরাসায় ভাঙচুরের কাজে জড়িয়ে পড়েছেন, এটাও কওমি মাদরাসার স্বকীয়তা বিরোধী একটি কাজ। তিনি আরও বলেন, ছাত্রসমাজের সকল প্রকার নায্য অধিকার আদায়ের আন্দোলনে ইসলামী ছাত্র মজলিসের সমর্থন ও সহযোগিতা থাকবে। তবে আন্দোলনে কোন হটকারিতার আশ্রয় নেয়া যাবে না। দাবি আদায়ের আগ পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে।

 

ইসলামী ছাত্র মজলিস মনে করে, উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলা করে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে সচেতন আলেমদের এগিয়ে আসা দরকার এবং মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থার ঐতিহ্য ও স্বকীয়তা বজায় রেখে আগামীদিনের পথচলাকে আরও সুশৃঙ্খল ও গতিশীল করতে হবে। ১৬ ও ১৭ সেপ্টেম্বর, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরিষদের ২য় সাধারণ অধিবেশনের সমাপনী অধিবেশনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

 

 

২ দিন ব্যাপী উক্ত অধিবেশনের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন প্রতিষ্ঠাকালীন কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, এডভোকেট মাওলানা শায়খুল ইসলাম, প্রকৌশলী আবদুল হাফিজ খসরু, মাওলানা ইলিয়াস আহমদ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ মনির হোসাইন, বায়তুলমাল ও প্রকাশনা সম্পাদক মুহাম্মদ শাহীন, প্রশিক্ষণ ও প্রচার সম্পাদক বিলাল আহমদ চৌধুরী, অফিস ও পাঠাগার সম্পাদক মুহাম্মদ আব্দুল গাফফার, কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য শাব্বির আহমাদ, আফজাল হোসাইন কামিল, মুহাম্মদ জারির হোসাইন। বিজ্ঞপ্তি