jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» ছাতকে সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গণধর্ষণ ও অস্ত্র মামলার প্রধান আসামী সাইফুর গ্রেফতার «» এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে ধর্ষণের ঘটনায় কাউকে ছাড় নয়- ওবায়দুল কাদের «» মাধবপুরে বাস-পিকআপ ভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১ «» বিয়ে বাড়িতে ১৫ বছর পর মাকে খুঁজে পেলেন ছেলে «» ছাত্র মজলিস এম.সি কলেজ শাখার বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত «» জলবায়ু পরিবর্তন : পৃথিবী রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ প্রস্তাব «» ছাতকে নৈশ প্রহরীকে বেঁধে ৫টি দোকানের মালামাল লুট «» ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশি পাসপোর্ট দিতে চাপ দিচ্ছে সৌদি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী «» সমাজসেবক গোলাম রব্বানীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নিন্দা ও প্রতিবাদ «» চার ধাপে চালু হচ্ছে পবিত্র ওমরাহ



জগন্নাথপুরে যৌতুক মামলার পলাতক আসামি জুয়েল গ্রেফতার

ডেস্ক রিপোর্ট :: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে স্ত্রীর দেয়া যৌতুক মামলায় জুয়েল নামে এক ব্যাক্তিকে জেল- হাজতে প্রেরন করেছে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ। জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর নির্দেশে পুলিশের বিশেষ অভিযানে যৌতুক মামলার ওয়ারেন্ডভুক্ত পলাতক আসামী জুয়েল আহমদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জগন্নাথপুর থানার এসআই অনিক চন্দ্র দেব, এসআই জহির আলী, এএসআই মনির হোসাইন তালুকদারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের নারিকেলতলা গ্রামের মৃত জহির মিয়ার ছেলে যৌতুক মামলার পলাতক আসামী জুয়েল আহমদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

 

জানাগেছে, মামলার এজাহারে প্রকাশ ছাতক উপজেলার ভাতগাঁও ইউনিয়নের আলীগঞ্জ বাজার (রুকুন্তজ) গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের মেয়ে সুহেলা বেগম শিউলীর সাথে জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের নারিকেলতলা গ্রামের মৃত জহির মিয়ার ছেলে নারী লোভী জুয়েল আহমদের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তাদের গভীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। দীর্ঘদিন তাদের একে অপরের সাথে দেখাসাক্ষাতের পর ২৭ জানুয়ারী ২০১৭ সালে এক লক্ষ টাকা দেন মোহর ধার্য করে পারিবারিকভাবে বিবাহ সম্পন্ন হয়।

 

 

মামলার সুত্রে এবং অসহায় নির্যাতিত সুহেলা বেগম শিউলী জানান, এক কণ্যা সন্তানের জন্ম হওয়ার পর থেকে জুয়েল যৌতুকের দাবিতে শুরু করে একের পর এক অমানবিক নির্যাতন। যৌ তুক না দেওয়ায় সে বিভিন্ন সময়ে নানানভাবে নির্যাতন করে।এক মেয়ে সন্তানের জন্মের এক মাস পর স্বামীর বাড়ি থেকে সুহেলা বেগম শিউলীকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে তার পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দেয় জুয়েল। সুহেলা বেগম শিউলী জানান, এক মেয়ে সন্তানের জন্ম হওয়ার পূর্বে আমার গর্ভের আরো দুইটি সন্তান ঔষধের মাধ্যমে জুয়েল নষ্ট করেছে। শেষ পর্যন্ত আমার ওই মেয়ে গর্ভথাকাকালীন সময়ে জুয়েল অনেক চেষ্টা করেছে বাচ্ছা নষ্ট করতে কিন্তু তা আমি কোন অবস্থায় তাকে সুযোগ দেইনি। কারন প্রত্যেক মা চায় তার সন্তানের মুখ দেখতে। অবশেষে এক মেয়ে জন্ম দেয়ারপর জুয়েল পাষবিক নির্যাতন সইতে না পেরে পিত্রালয় থেকে আদালতে মামলা দিতে বাধ্য হই। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে জুয়েলকে একাদিকবার নোটিশ দেয়ারপরও আদালতকে অবমাননা করায় জুয়েলের বিরোদ্ধে ওয়ারেন্ট জারি করে বিজ্ঞ আদালত। ওয়ারেন্টে ভুক্ত হওয়ার পর জগন্নাথপুর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে সুনামগঞ্জ জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে বলে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ জানায়।