jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» দরিদ্র পরিবারে এম এ সাত্তার ফাউন্ডেশনের ঈদ উপহার বিতরণ «» যুক্তরাজ্য বিএনপির সহ-সভাপতি এম এ সাত্তারের ঈদের শুভেচ্ছা «» উম্মাহ হেন্ডস ইউকে’র পক্ষথেকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অসহায়দের মাঝে ত্রান ও অর্থ বিতরণ «» জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দ তালহা আলমের ঈদের শুভেচ্ছা «» ছাতকে গলায় ওড়না পেছানো অবস্থায় লাশ উদ্ধার «» জগন্নাথপুরে লাইসিয়াম কিন্ডারগার্টেন স্কুল’র পক্ষ থেকে ঈদ উপলক্ষে নগদ ২ লক্ষ টাকা বিতরণ «» নবীগঞ্জে অর্থ বিতরণ করলেন সাংসদ মিলাদ «» প্রবাসীরা দেশে অবদান রেখে ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছেন- এমপি মোকাব্বির খান «» জগন্নাথপুরে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দোয়া ও ইফতার মাহফিল «» শ্রীমঙ্গলে প্রবাসীকে হয়রানীর অভিযোগ: ইউপি চেয়ারম্যান সুফি মিয়ার প্রত্যাখ্যান



বন্ধ করে দেয়া হলো বড়লেখার হলি লাইফ হাসপাতাল

নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় লাইসেন্স না থাকাসহ বিভিন্ন অনিয়মে বেসরকারি হলি লাইফ স্পেশালাইজড হাসপাতালকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সেইসাথে হাসপাতালটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) বিকেল পাঁচটার দিকে বড়লেখা পৌর শহরের দক্ষিণবাজার এলাকায় অবস্থিত আলহাজ্ব শিব্বির ম্যানশনে পরিচালিত এই হাসপাতালে অভিযান চালানো হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শামীম আল ইমরান। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রতœদীপ বিশ্বাস, বড়লেখা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন দেবনাথ।
ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, স¤প্রতি একজন রোগীর পক্ষে তার স্বজন বেসরকারি এই হাসপাতালটির বিরুদ্ধে যথাযথ চিকিৎসা না পাওয়ার অভিযোগ করেন। একইসাথে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মোহাম্মদ নুর নবী রাজুকেও অভিযুক্ত করেন। যিনি ওই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান মৌসুমী কিবরিয়ার স্বামী।

 
এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত হাসপাতালটিতে অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় দেখা গেছে, হাসপাতালের লাইসেন্স নেই। হাসপাতালে মেয়াদ উত্তীর্ণ রি-এজেন্ট ও সরকারি হাসপাতালের ওষুধ পাওয়া গেছে। হাসপাতালে সেবা কার্যক্রমেরও কোনো মূল্য তালিকা নেই। হাসপাতালের অভ্যন্তরে ফার্মেসির ড্রাগ লাইসেন্স নেই। এসব কারণে ভ্রাম্যমাণ আদালত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। সেই সাথে লাইসেন্স না হওয়া পর্যন্ত হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।