jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» বড়লেখায় ৬টি মামলার পলাতক আসামি শিবির নেতা গ্রেফতার «» কানাইঘাট উপজেলা সমাজকল্যাণ পরিষদের উদ্যােগে ৭শতাধিক শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান «» সুনামগঞ্জের মাওলানা সাদিক সালীম দেশসেরা তরুণ আলোচিত সংগঠক মনোনীত «» সিলেটে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণে মাদ্রাসা শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করছে সরকার- ডা শিপলু «» মাধবপুরে দাখিল মাদ্রাসায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যায়ে ৪ তলা ভবনের ভিত্তি প্রস্তর করলেন বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী «» ফেঞ্চুগঞ্জের শরিফগঞ্জে ৮ম দ্বৈত ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতার উদ্বোধন «» জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটিতে সিলেটের চার নেতা «» জগন্নাথপুরে মেয়র আব্দুল মনাফের জানাজায় কয়েক হাজার জনতার ঢল «» সিলেটে আরিফুল হক চৌধুরী একাডেমীতে বই বিতরণ «» সিলেটে স্ত্রীর সামনে ছাতকের এক তরুণীকে ৩ মাস ধরে ধর্ষণ: থানায় মামলা দায়ের



যুক্তরাজ্যের নির্বাচনে ২২০ নারী প্রার্থীর রেকর্ড জয়

জেএসবি টুয়েন্টিফোর ডেস্ক :: ব্রেক্সিট বা ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়া নিয়ে অনেক দিন ধরেই উত্তাল যুক্তরাজ্য। এর মধ্যে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আহ্বানে বৃহস্পতিবার আগাম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে দেশটিতে। সাধারণ নির্বাচনে বিপুল ভোট পেয়ে নিরঙ্কুশভাবে বিজয়ী হয়েছে জনসনের কনজারভেটিভ পার্টি। এই নির্বাচনে নতুন রেকর্ড গড়েছেন নারী প্রার্থীরা। আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে এবার সর্বাধিক সংখ্যক নারী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন ব্রিটিশ সাধারণ নির্বাচনে। সর্বশেষ ২০১৭ সালের সাধারণ নির্বাচনে সর্বোচ্চ ২০৮ জন নারী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে দেখা যায়। আর এবার সেই সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২২০ জনে। শুক্রবার দেশটির প্রেস অ্যাসোসিয়েশনের সংবাদ সংস্থা এই তথ্য জানায়।

 

 

এদিকে, লেবার পার্টির এমপি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলী, টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক ও রূপা হক বড় জয়ে তাদের আসন ধরে রেখেছেন। তাদের সঙ্গে এবার আফসানা বেগমও ব্রিটিশ পার্লামেন্টে প্রধান বিরোধী দলের বেঞ্চে বসবেন। এবারই প্রথম চারজন ব্রিটিশ বাংলাদেশি এমপি প্রতিনিধিত্ব করতে যাচ্ছেন গণতন্ত্রের সূতিকাগারে। তাদের মধ্যে টিউলিপ সিদ্দিকী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগনি।

 

 

এদিকে, ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে ইতোমধ্যেই ৬৫০টি আসনের মধ্যে ৬০০ আসনের ফলাফল হাতে এসেছে। এর মধ্যে কনজারভেটিভ দল পেয়েছে ৩৩০টি আসন এবং লেবার পার্টি পেয়েছে ১৯৬ আসন। নির্বাচনে জয়ী হতে প্রয়োজন ছিল ৩২৬টি আসন। ইতোমধ্যেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পার করে ফেলেছে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি।