jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» একজন আদর্শ শিক্ষক অধ্যক্ষ মাওঃ শামছুজ্জামান চৌধুরী «» ঈদ-উল- আযহা উপলক্ষে দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে খেলাফত মজলিসের শুভেচ্ছা «» জগন্নাথপুর উপজেলা কালচারাল ফোরাম এর নব-গঠিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে আলোচনা সভা ও নগদ অর্থ বিতরণ «» সেপ্টেম্বরে স্কুল খুললে ডিসেম্বরেই প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা «» বিমানের নতুন সিদ্ধানে লন্ডন প্রবাসী সিলেটীরা ক্ষুব্ধ «» গোয়াইনঘাটে অর্ধশত ইয়াবাসহ যুবক আটক «» জগন্নাথপুরে পানিবন্দি মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দ তালহা আলমের নগদ অর্থ দেড় লক্ষ টাকা বিতরণ «» সাবেক শিক্ষামন্ত্রীর তাগিদে শুরু হলো সিলেট-বিয়ানীবাজার রাস্তার সংস্কার কাজ «» বাহুবলে ভাগ্নির টাকা আত্মসাৎ ও বোনকে মারধোরের ঘটনায় অভিযোগ দায়ের «» দক্ষিণ সুনামগঞ্জে সংবাদ প্রকাশের পর পরই এএসআই হাসনাত ক্লোজড



যুক্তরাজ্যের নির্বাচনে ২২০ নারী প্রার্থীর রেকর্ড জয়

জেএসবি টুয়েন্টিফোর ডেস্ক :: ব্রেক্সিট বা ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়া নিয়ে অনেক দিন ধরেই উত্তাল যুক্তরাজ্য। এর মধ্যে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আহ্বানে বৃহস্পতিবার আগাম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে দেশটিতে। সাধারণ নির্বাচনে বিপুল ভোট পেয়ে নিরঙ্কুশভাবে বিজয়ী হয়েছে জনসনের কনজারভেটিভ পার্টি। এই নির্বাচনে নতুন রেকর্ড গড়েছেন নারী প্রার্থীরা। আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে এবার সর্বাধিক সংখ্যক নারী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন ব্রিটিশ সাধারণ নির্বাচনে। সর্বশেষ ২০১৭ সালের সাধারণ নির্বাচনে সর্বোচ্চ ২০৮ জন নারী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে দেখা যায়। আর এবার সেই সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২২০ জনে। শুক্রবার দেশটির প্রেস অ্যাসোসিয়েশনের সংবাদ সংস্থা এই তথ্য জানায়।

 

 

এদিকে, লেবার পার্টির এমপি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলী, টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক ও রূপা হক বড় জয়ে তাদের আসন ধরে রেখেছেন। তাদের সঙ্গে এবার আফসানা বেগমও ব্রিটিশ পার্লামেন্টে প্রধান বিরোধী দলের বেঞ্চে বসবেন। এবারই প্রথম চারজন ব্রিটিশ বাংলাদেশি এমপি প্রতিনিধিত্ব করতে যাচ্ছেন গণতন্ত্রের সূতিকাগারে। তাদের মধ্যে টিউলিপ সিদ্দিকী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগনি।

 

 

এদিকে, ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে ইতোমধ্যেই ৬৫০টি আসনের মধ্যে ৬০০ আসনের ফলাফল হাতে এসেছে। এর মধ্যে কনজারভেটিভ দল পেয়েছে ৩৩০টি আসন এবং লেবার পার্টি পেয়েছে ১৯৬ আসন। নির্বাচনে জয়ী হতে প্রয়োজন ছিল ৩২৬টি আসন। ইতোমধ্যেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পার করে ফেলেছে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি।