jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» ছাতকে ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে সংখ্যালঘু পরিবার গৃহবন্দি «» ওসমানীনগরে মজলিসের সভায় বিশ্ব নেতৃত্ব দিবে অাজকের নির্যাতিত মুসলিম জাতীর নতুন প্রজন্মের সৈনিকরা- ছাত্রনেতা শাহাবুদ্দিন «» চিরকুট লিখে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা «» নবীগঞ্জে প্রেমিক- প্রেমিকার বিয়ে! «» ওসমানীনগরে কনফিডেন্স কোচিং সেন্টারের উদ্যোগে গুনিজন সম্মাননা স্মারক প্রদান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» যারা কাশ্মীর কে ভারতের অংশ বলে, তারা ইতিহাস জানে না- নূর হুসাইন কাসেমী «» জগন্নাথপুরে সরকারি গাছ কাটা নিয়ে নির্দোষ দাবি যুবলীগ নেতার «» বিশ্বনাথ উপজেলা ছাত্রদলের নতুন কমিটি! «» জগন্নাথপুরে দ্বিতীয় পাঠশালার উদ্বোধনে সমাজ থেকে নিরক্ষরতা মুক্ত করণে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে- ইউএনও মাসুম «» ওসমানীনগর খেলাফত মজলিসের ঈদ পুণর্মিলনী সম্পন্ন



মৌলভীবাজারে বন্যায় হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দি

নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজার জেলা দিয়ে বয়েছে মনু, কুশিয়ারা ও ধলাই নদী। এই তিন নদীর পানি বর্তমানে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এসব নদ-নদীর পানি লোকালয়ে প্রবেশ করে মৌলভীবাজারের প্রায় ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে ও উপচে সদর উপজেলা, রাজনগর ও কমলগঞ্জের কয়েকশত গ্রাম তলিয়ে গেছে। তলিয়ে গেছে বাড়ি-ঘর, রাস্তা-ঘাট ও ফসলি জমি। দুর্গতদের মধ্যে দেয়া হচ্ছে ত্রাণ সহায়তা। পানি ঢুকেছে প্রায় ৫০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। সর্বশেষ ১৫ জুলাই রাত ১১.৫৯ মিনিটে মৌলভীবাজারের মনুনদী রেলওয়ে ব্রিজ পয়েন্টে বিপদ সীমার ৭৬ সেন্টিমিটার ও চাঁদনীঘাট পয়েন্টে ৯৭ সেন্টিমিটার, ধলাই নদী ৯ সেন্টিমিটার ও কুশিয়ারা নদী মৌলভীবাজার অংশে শেরপুর পয়েন্টে বিপদসীমার ৫৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানায় পাউবো।

 

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) মৌলভীবাজার কার্যালয় সূত্র জানায়, গত কয়েকদিনে কমলগঞ্জের রহিমপুর ইউনিয়ন, কমলগঞ্জ পৌরসভার, আমদপুর ইউনিয়ন, রহিমপুর ইউনিয়নের কয়েকটি স্থানে বাধ ভেঙে প্রায় শতটি গ্রামে পানি প্রবেশ করে । কুশিয়ার পানি বৃদ্ধি পেয়ে সদর উপজেলার খলিলপুর, আখাইলকুড়া ও মুনমুখ ইউনিয়নে কয়েখটি গ্রাম পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে বলে জানান স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। রাজনগর উপজেলার ফতেহপুর, উত্তরভাগ ও কামারচাক ইউনিয়নে কুশিয়ারা ও ধলাই নদীর পানিতে আকস্মিক বন্যায় কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। এছাড়াও শ্রীমঙ্গল উপজেলার বিলাসপার এলাকায় পাহাড়ি ঢলে ছড়ার পানিতে ৫টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।

 

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, ঢল ও বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতায় জেলার ৪৬ হাজার মানুষ রয়েছেন পানিবন্দি অবস্থায়। তাদের মাঝে ৩৬ টন চাল ও এক হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে এবং সদর উপজেলার শেরপুরে দুটি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, জেলায় ১৭৪ হেক্টর আউশ ধান আক্রান্ত হয়েছে এবং ৫৯ হেক্টর আউশের বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী রণেন্দ্র শংকর চক্রবর্তী জানান, পানি নামার পরই ধলাই নদের তিনটি ভাঙনস্থান মেরামত করা হবে। মনু, ধলাই ও কুশিয়ারা নদীর পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।