jagannathpurpotrika-latest news

আজ, ,

সর্বশেষ সংবাদ
«» একজন আদর্শ শিক্ষক অধ্যক্ষ মাওঃ শামছুজ্জামান চৌধুরী «» ঈদ-উল- আযহা উপলক্ষে দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে খেলাফত মজলিসের শুভেচ্ছা «» জগন্নাথপুর উপজেলা কালচারাল ফোরাম এর নব-গঠিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে আলোচনা সভা ও নগদ অর্থ বিতরণ «» সেপ্টেম্বরে স্কুল খুললে ডিসেম্বরেই প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা «» বিমানের নতুন সিদ্ধানে লন্ডন প্রবাসী সিলেটীরা ক্ষুব্ধ «» গোয়াইনঘাটে অর্ধশত ইয়াবাসহ যুবক আটক «» জগন্নাথপুরে পানিবন্দি মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দ তালহা আলমের নগদ অর্থ দেড় লক্ষ টাকা বিতরণ «» সাবেক শিক্ষামন্ত্রীর তাগিদে শুরু হলো সিলেট-বিয়ানীবাজার রাস্তার সংস্কার কাজ «» বাহুবলে ভাগ্নির টাকা আত্মসাৎ ও বোনকে মারধোরের ঘটনায় অভিযোগ দায়ের «» দক্ষিণ সুনামগঞ্জে সংবাদ প্রকাশের পর পরই এএসআই হাসনাত ক্লোজড



মৌলভীবাজার রেল সেতুর ঢালাই কাজে নিম্নমানের ইট!

নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার বরমচালে রাতের বেলা ১টি সেতু থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনের ৫টি বগি লাইনচ্যূত হওয়ার ঘটনায় ৪ জনের মৃত্যু হওয়ার পর সারা দেশে রেলওয়ে বিভাগ নড়ে চড়ে কাজ শুরু করেছে। রেলওয়ে তদন্ত প্রতিবেদনেও রেলপথের ত্রুটি উল্লেখ করা হয়।

এর মধ্যে কমলগঞ্জের শমশেরনগর আপ আউটার সিগ্যানাল সংলগ্ন ধামালী ছড়া রেল সেতুর নিচের ঢালাই কাজে খুবই নিম্নমানের ইট ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। সরেজমিন ধামালীছড়া রেল সেতু এলাকা ঘুরে ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে এ চিত্র পাওয়া যায়।

শনিবার শমশেরনগর রেলওয়ে স্টেশনের আপ আউটার সিগ্যানাল সংলগ্ন ধামালী ছড়া এলাকা গেলে দেখা যায়, রেল সেতুর ঢালাই কাজে ২টি পাওয়ার ট্রিলার ট্রলি দিয়ে ইট এনে রাখা হচ্ছে।

এসব ইট খুবই নিম্নমানের। হাতে তুলে নিচে ফেলে দিলে ইট ভেঙ্গে গুড়ো হয়ে যায়। শমশেরনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর গফুর অভিযোগ করে বলেন, বরমচালে এত বড় দুর্ঘটনার পরও ঠিকাদার কিভাবে ৩ নম্বর ইট ব্যবহার করছেন।

তিনি বিষয়টি প্রথমে শমশেরনগর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টারকে অবহিত করে তার কাছ থেকে ফোন নম্বর নিয়ে সিলেটে কর্মরত রেলওয়ে গণপূর্ত বিভাগের একজন উর্দ্ধতন প্রকৌশলীর সাথে কথা বলে অভিযোগ করেছিলেন।

এসময় উর্দ্ধতন প্রকৌশলী ধামালী ছড়া রেল সেতুর ঢালাই কাজের ব্যবহৃত ইট নিয়ে কোন জবাব দেননি। পরে আব্দুল গফুর বিষয়টি সম্পর্কে মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ উপাধ্যক্ষ এম এ শহীদকে অবহিত করেন। গ্রামবাসীরা বলেন ধামালী একটি পাহাড়ি ছড়া।

ভারী বৃষ্টিপাত হলে পাহাড়ি ঢলের পানি নামতে শুরু করলে এ সেতু এলাকায় প্রবল ¯্রােতের সৃষ্টি হয়। এখানে ভাল মানের ইট ব্যবহার করে ঢালাই না দিলে পানির ¯্রােতের আঘাতে ঢালাই ভেঙ্গে যাবে। ইট পরবিহনকালে পাওয়ার ট্রিলার ট্রলির চালক ও শ্রমিকদের কাছে জানা যায়, জনৈক সেলিম আহমদ এ কাজের ঠিকাদার।

তাদের কাছ থেকে ঠিকাদার সেলিম আহমদের মুঠোফোন নম্বর নিয়ে কয়েক দফা চেষ্টা করলেও তিনি ফোন ধরেননি। তবে কুলাউড়াস্থ রেলওয়ে গণপূর্ত বিভাগের উর্দ্ধতন উপ-সহকারি প্রকৌশলী (কর্ম) জুয়েল হোসেন বলেন, তিনি অভিযোগ শুনছেন। দ্রুত নিম্নমানের ইট পরবিতর্নের ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলেও তিনি জানান।